Premer kobita

তোমাকেই ভালোবাসবো বলে

তোমার কাছে আসবো বলে
চেনা-অচেনা সব পথ করেছি বর্জন
তোমাকেই ভালোবাসবো বলে
কোথাও হয়নি করা নিজেকে সমর্পণ।

বুকের ভেতর মুখরিত
রঙ বেরঙের কত কথা
তোমার জন্য নীরব আমি
এক জনমের নীরবতা।

প্রমত্তা জ্যোৎস্নায় ভিজবো বলে
জ্ঞাতে-অজ্ঞাতে এক ও অভিন্ন সত্তায়
ডুবন্ত অন্ধকারে, আজন্ম রয়ে গেছি একা।

কোজাগরী আকাশ দেখবো বলে
তোমার চোখে চোখ রাখা
কৃষ্ণচূড়ার ডালে ডালে
ভালোবাসার আবীর মাখা।

তোমাকেই ভালোবাসবো বলে
সমুদ্র সেচে প্রবাল কুঁড়াই
গুঞ্জরিত হাজার কথার মুখরতা।

বিস্ময়কর দু’টি চোখ

কি বিস্ময়কর দু’টি চোখ সকরুন দৃষ্টি
এক আকাশে শূণ্যতার ভীড়ে
এক ফালি সাদা মেঘ
সৃষ্টির সেরা সৃষ্টি।

আলো ফুটলেই ছায়ায় মৃত্যু চিরায়ত কাহিনি
প্রসন্ন বিকেলে বিষাদ বদনে বিপন্ন গোধূলী।

তোমার আমার পৌরাণিক প্রেমে
যতটুকু পুঁজি
গভীরে লুকায়িত ঢের বেশী প্রেম
আপন হিয়ায় খুজি।

একটি সন্ধ্যা আমায় দিয়ে তুমি আজ নিরুদ্দেশ
জীবন দোলায় ধূর্ণিপাকে রেখে গেলে রেশ।

ভরা বর্ষায় ভালোবাসার কদম

অনাবাদী বুকের জমিনে
খুব চাই আবাদ হোক
ভালোবাসা নামক শষ্যের আবাদ।

মরুময় হৃদপিন্ডের তপ্ত হিয়ায়
বৃষ্টি নামুক অঝর ধারায়
ধুঁয়ে যাক জল জ্যোৎস্নায় গাঢ় অন্ধকার।

জরা নয়-খরা নয়
মিষ্টি রোদের উষ্ণতায়
অবহেলার বৃত্ত ভেঙ্গে
স্নান হোক ভরা পূর্নিমায়
উষ্ণতায়- পূর্ণ আনন্দধারায়।

Premer kobita

ভালোবাসার ভিত্তিমূলে

নিদ্রাহীন ভঙ্গুর রাত
বুকে দীর্ঘ শোকগাথা
হৃদয়ের পোড়া ভিটায়
শব্দহীন কষ্ট আষ্টেপৃষ্টে বাধা।

ছেলেটি ছুটছে,দেখা- অদেখা
আলো-অন্ধকারে
কাঁধে বিবর্ণ কষ্টের ঝোলা
এক অনিশ্চিত বিরামহীন পথচলা।

জীর্ণ পাতার গল্প শেষে
পাতায় ফিরে আসে প্রাণ
হাহাকারের বৃত্ত ভেঙ্গে
মোমগলা রঙে আঁকে অভিমান।

তোমার মুখাবয়ে জোয়ার
প্লাবিত নদীর দুকূল
আমার ভেতর ভূমিষ্ট
ভালোবাসার ভিত্তিমূল।

মনের গহীনে গোপন অভিসার ছিল

মনটা বিষাদে ছেয়ে গেলেও
ক্ষরণে হরণে জীবনের বাস্তভিটায়
পাওয়া না পাওয়ার বাহিরেও
অপেক্ষার একটা ভঙ্গি ছিল।
তোমার কাছে আরও একবার
ফেরার প্রবল ইচ্ছে ছিল।
প্রতিশ্রুতিহীন গোধূলীর বিষন্ন বিকেল
তবু যেন প্রতিশ্রুতির শ্রুতি ছিল।

বুকভরা প্রথাগত আর্তি ছিল
বিবাগী হিয়ায় বসন্তের রঙ্গিন হাওয়ায়
পরস্পর দখলের চেষ্টা ছিল।
নিংড়ানো মৌচাক-তবু মোহ ছিল
মনের গহীনে গোপন অভিসার ছিল।

ইট পাথরের এই নগরে
হৃদয় জুড়ে কলরব ছিল
থাকা কিংবা না থাকার মাঝেও
ভালোবাসার বিশ্বাস শানিত ছিল
পরস্পর নিয়তি একই সঙ্গে বাঁধা ছিল।

ভালোবাসার দেয়ালে দেয়াল বিরহের সানাই

হৃদকূয়াতে ভেসে ওঠে
এক প্রতিমার মুখ
অজান্তে করি ভুল
নিত্য জ্বালি ধূপ।

শোকার্ত গোধূলী বিবর্ণ ডালা
বুকের জমিনে ঊষর পলি
চাপা কান্নার ধ্বনি- প্রতিধ্বনি
প্রেমান্ধ পূজারী- রোজকার বলি।

আগুনে পুড়ছে দেহ সয়লাব পোড়াগন্ধে
নিলামে তুলেছি স্বপ্ন তবু বিক্রি চড়ামূল্যে।

ভালোবাসার দেয়ালে দেয়ালে
ফাটলের গাঢ় চিহ্ন
নিবার্সন দন্ডে আজীবন একা
স্মৃতির আঁতুরঘর ছিন্নভিন্ন।

ভালোবাসার ফসিল

পাষাণে বাধা হৃদয়
আগুনে পোড়ানো মন
গলে যাওয়া আত্মায়
অবিরাম রক্তক্ষরণ।

এত আলো জমা ছিল
দূর আকাশের গায়
ধেই ধেই কালো মেঘ
বিপন্ন বেদনায়।

সব কিছু ভেঙ্গে পড়ে
নদী ভাঙ্গে কূল
দিন যায় মাস যায়
ভাঙ্গে না তবু ভুল।

ফেরালেই ফিরে যেতে হবে?
এমন তো নয়
ভালোলাগা অসীম
শূন্যতায় মিশে রয়
অবশিষ্ট ভালোবাসার ফসিল।

গ্লানিকর স্পর্শের বাহিরে
নিশ্চিত কিছু প্রাপ্তী থাকে
বাঙ্গালীয়ানায় যেমন থাকে গৌরব
কাঙ্গালপনায় তেমন অপার্থিব অর্জন।

Premer kobita

Facebook Comments