Karuna Acherjee deser kobita

আমার গাঁ

শহর থেকে একটু দূরে যেই বাড়াবে পা
অমনি হঠাৎ দেখতে পাবে আমার ছোট্ট গাঁ।

আমার গায়ের প্রজাপতি পাখনা মেলে দেবে
মিষ্টি মধুর গ্রামটি তোমায় আপন করে নেবে।

সবুজ সবুজ গাছের হাওয়ায় জুড়িয়ে যাবে প্রাণ
যায় ডেকে যায় মায়া ভরা সোঁদা মাটির ঘ্রাণ ।

দেখবে গাঁয়ে ছুটে বেড়ায় স্বপ্ন রাশি রাশি
জুঁই চামেলি চম্পা বকুল ছড়ায় মধুর হাসি।

জোৎস্না আলো বটের ছায়ায় কতো ভালোবাসা
শান্ত সুবোধ গাঁ টি আমার পুরাই সবার আশা।

কর্ণফুলী ঢেউয়ের তালে নাও ভাসিয়ে চলে
মনের যতো গোপন কথা কইবে তুমি এলে।

ছোট্ট সোনার গ্রামটা আমার

কর্ণফুলীর পাড়ে আমার ছোট্ট সোনার গাঁ
এই গাঁয়েতে শৈশব স্মৃতি আরো আছেন মা।

কালুরঘাট বেতার কেন্দ্রও হালদার নদীর বাহার
আকাশ ঘেঁষে দাঁড়িয়ে আছে বানিজ্য পাহাড়।

নদীর শোভা জলের নাচন বহে চলে দূর
প্রাণের চেয়েও প্রিয় গাঁ টি আনন্দ মধুর।

মায়ার বাঁধন ঘরে ঘরে সম্প্রীতিতে ভরা,
হিন্দু, মুসলিম,বৌদ্ধ,খ্রীস্টান এক আত্নাতেই গড়া।

মাঠে মাঠে সোনার ফসল স্নিগ্ধ ছায়ার বন,
রাখাল -মাঝি গানের সুরে ভরিয়ে তোলে মন।

পাখপাখালি নদীর ধারে কিচির মিচির করে,
সন্ধ্যা হলে দল বেঁধে সব ফিরে আপন ঘরে।

পৌষ পার্বণ আর খেলাধুলায় চলে মিলন মেলা,
সুখে দুঃখে মিলেমিশে কাটাই জীবন ভেলা।

ছোট্ট সোনার গ্রামটা আমার শান্ত প্রিয় নীড়,
হেসে খেলে রাঙিয়ে তুলি কর্ণফুলীর তীর।

নববর্ষে প্রার্থনা

-১-
রৌদ্র দগ্ধ চৈত্র শেষে বাসী বসুন্ধরার মলিনতা মুছে
নব উদ্যোমে, বীরের বেশে এসো হে নববর্ষ।

পৃথিবীর যত অপশক্তি, অকল্যাণ বিনাশ করো
শান্তিরবার্তা নিয়ে প্রকট হও মঙ্গলময় হে নববর্ষ।
করোনার মৃত্যু মিছিলে বিশ্ব মানব বড়ই ক্লান্ত এই গ্লানি ধুয়ে মুছে পৃথিবী করো শান্ত হে নববর্ষ।

শোনাও তোমার আশার বাণী জাগাও মনে হর্ষ
জরা,ব্যাধী,ঘূর্ণিঝড় ধংস করে এসো হে নববর্ষ।

শুভশক্তি,শুভবুদ্ধি জাগাও মানবের রন্ধ্রে রন্ধ্রে, প্রকৃতির বুকে সুখ আর প্রশান্তি এনে দাও হে নববর্ষ।
-২-
আজ রয়েছে বন্দী মানব আপন কুলায় বিশ্ব জুড়ে
মায়ার বাঁধন ছিন্ন করে লকডাউনে দূরে দূরে।

শূন্যে উড়ে যাচ্ছে মানব করোনাতে দলে দলে
মৃত্যু মিছিল বাড়ছে আরো অপশক্তির ছলে বলে।
হে বিধাতা! বিশ্বদাতা! একি শত্রু দিলে মোদের তরে
কোথায় তুমি আছো প্রভু কান্না থামাও ঘরে ঘরে।
প্রকৃতিও চেয়ে চেয়ে হাসছে যেন কেমন করে
আমরা অবোধ মানব জাতি দাওনা প্রভু ক্ষমা করে।

বঙ্গরাজ

মুজিব শত বর্ষ উপলক্ষে নিবেদিত।

বিশ্ব জোড়া খ্যাতি তোমার
সবার প্রিয় বঙ্গরাজ,
বাংলার মহান পুরুষ তুমি
পেলে সততার তাজ।

টুঙ্গী পাড়ায় জন্ম তোমার
যোগ্য মায়ের ছেলে
বীর বাংলার খেতাব আরো
কতো সম্মান পেলে।

তোমার ডাকে জাগলো মানুষ
দিলে সংগ্রামী বাণী,
এই বাংলার সব জনতা
তোমার কাছেই ঋণী।

বলতে বলতে ফুরাবেনা
তোমার কৃতিযশ,
সারা বাংলা আজ হয়েছে
তোমার কাছেই বশ।

তোমার স্বপ্ন পূর্ণ হলো
হলো বাংলার জয়,
দুঃসাহসী বীর বাঙালি
দূর করেছো ভয়।

উঁচুশিরে চলছে এখন
বাংলার মসনদ,
ধন্য তুমি মহান নেতা
সৌম্য তোমার পথ।

Karuna Acherjee deser kobita

মায়ের আঁচল

মায়ের আঁচল বুকে ধরে
শুয়ে আছো মাটির ঘরে,
তোমরা যতো প্রাণের প্রিয়
বীর বাঙালি ভাই,
শত কোটি শ্রদ্ধা সালাম
তোমাদের জানাই।

সালাম,জব্বর,রফিক,বরকত
বাংলা মায়ের গান,
রণাঙ্গনে জীবন দিয়ে
রাখলে ভাষার মান।

শত্রুরা তো চেয়েছিল
করতে ভাষা খর্ব,
রুখতে গিয়ে তোমরা হলে
বিশ্ববাসীর গর্ব ।

তোমরা যেদিন শহীদ হলে
কাঁপলো আরশ আসমান,
সেদিন থেকে শুরু হলো
অমর ভাষার উপখ্যান

ভাষা ও শহীদ

একুশ এলে কবির কণ্ঠে
ভাষার গল্প শুনি,
একুশ এলে বর্ণমালার
উঠে জয়ধ্বণি।

একুশ এলে ভাইয়ের রক্ত
ঝরলো কেন জানি,
একুশ এলে মায়ের মুখে
ভাইয়ের কথা শুনি।

একুশ এলে শহীদ মিনার
সাজে তাজা ফুলে,
একুশ এলে রাজপথে ঐ
নকশা পাখা মেলে।

একুশ এলে সবাই শুনে
রক্ত ঝরার গান,
ভাষা ও শহীদ একুশকে তাই
করেছে মহান।

Karuna Acherjee deser kobita

Facebook Comments