Desher kobita

আর কাদঁবো না

Independence Day in Bangladesh
26th-march-poem-ar-kadbona

অনেক কেদেঁছি, আর কাদঁবো না আমি,
এখন মাথার উপর সুবিস্তৃত আকাশ আছেনা আমার!
আর কখনোই চোখের জল চোখ থেকে গড়িয়ে, চিবুক ছুতে দেবনা, আর কখনোই জয়ী হতে দেব না-
অন্যায়, বাঁকাচোখ, কিংবা চিপাগলির ঐ উত্যক্তকারিকে!
সালাম, জব্বার, রফিক, বরকত এরঁ মতো বীর সাহসী বীর আছেনা আমার! ছিনতাই, সেশন জট, বিদ্যুৎ সংকট, কিংবা বাজার দরের উর্ধগতি, নার্গিস, সিডর, আইলা, কিংবা মহাকম্পন যখনি থমকে দেয় আমার পথচলাকে – ঠিক তখনই মনে হয়, কেন থমকে দাঁড়াব আমি! কেন হেরে যাবো? ষোল ডিসেম্বরের মতো মহা বিজয় আছে না আমার!

রাজনৈতিক দলাদলি, শিক্ষাঙ্গগনে হামলা, ইভটিজিং –
এসিড নিক্ষেপ, যৌতুকের দায়ে গৃহ বধু খুন, শিশু পাচার, কিংবা জাতির মেরুদণ্ড, শিক্ষক লাঞ্ছিত- এসব মাথা নোয়ানোর মতো ঘটনায় নিজেকে যখন বড় বেশি
বে – আব্রু লাগে, তখনই নিজেকে আবৃত করার একদম আপন যা মনের আঙ্গিনায় পাই, লাল – সবুজের গৌরবী পতাকা ! সত্যকে মিথ্যা আর মিথ্যাকে সত্য বলার দুর্বার প্রয়াস চলছে যেন, সেই কবে থেকে!

সৎ কিবা সত্য হলেই যেন, আকাশসম বজ্রপাতে তছনছ করে দেয়, জীবন থেকে জীবন! আমি কেন থেমে যাবো! তাই বলবো আমি নির্ভীক হয়ে, লক্ষ জীবনের বিসর্জনে,
আমার একুশ আছে না!

Independence Day in Bangladesh

ফতোয়াবাজি, ভেজাল, চোরাচালান আর রেব-পুলিশের ক্রসফায়ারে বলি হতে দেবনা আর একটিও প্রাণ !
ত্রিশ লক্ষ তাজা রক্তের বিনিময়ে আজকের এই ভূখণ্ড আমার! তাই আর একটি বারও কলংকিত হতে দেব না,
আমার এ দেশকে !
বাঁচার -বলার – চলার স্বাধীনতা আর এভাবে লুণ্ঠিত হতে দেবনা, কখনো না ! ছাব্বিশে মার্চ আছে না আমার!

আমি আর কাদঁবো না! অনেক কেদেঁছি, বেসামাল এই আমাকে শক্ত বাহু ডোরে পালকের কোমলতায় সামলাতে এখন আমার তুমি আছো না! !!

এই পতাকা

mujib borsho kobita-kobitayjagoron.com
Mujib-Year-Poetry-ei-potaka

সবুজ লালের এই পতাকা
যখন হাওয়ায় দোলে-
মনের ভেতর মন ময়ূরী
নাচে পেখম খোলে।

লাল সবুজের ঢেউ খেলেযে,
পত পতিয়ে বাতাস-
উচ্চ শিরে কয় জাতিরে,
বীর বাঙ্গালী সাবাস।

Desher kobita mujib borsho kobita ei potaka

এই পতাকাই কবিতা আমার
এই পতাকাই গান-
জীবন দিয়ে রাখবো আমি
তাই পতাকার মান।

বিশ্ব বুকে এই পতাকা
গর্বে উড়ে আজ-
ত্রিশ লক্ষ বীর যোদ্ধার
এই পতাকাই তাজ।

হাজার স্মৃতির সাক্ষ্য হয়ে,
এই পতাকা বহমান-
এই পতাকায় চীর অমর
শেখ মুজিবর রহমান।

একুশে ফেব্রুয়ারী

ekushey-february-kobitayjagoron
ekushey-february

স্বপ্ন নিয়ে রইছি বেঁচে,
ফিরবে বাবা বাড়ী-
তাই আমিতো ভুলিনি আজও
একুশে ফেব্রুয়ারী।
হাড়ি পাতিল খেলার পুতুল,
সব দিয়েছি আড়ি-
দিন পঞ্জিকায় গুনছি প্রহর
একুশে ফেব্রুয়ারী।

Desher kobita ekushey february

হাসেনা মা কাঁদে শুধু,
মুখটা করে ভারী-
কেমন করে ভুলি আমি
একুশে ফেব্রুয়ারী।
বাবা তুমি ফিরবে কবে?
আনবে রঙিন শাড়ী-
চোখের জলে ডাকছে মা’গো
একুশে ফেব্রুয়ারী।
মা মেয়ে তাই পথ চেয়ে যাই,
ভুলতে না পারি-
তুমি কি বাবা ফিরবে সত্যি
একুশে ফেব্রুয়ারী।

বাংলা ওয়াশ!!!

cricket world cup
Bangla-wash-poem.jpg

খেলছে ওরা লড়ছে ওরা,
বিশ্ব দেখে চেয়ে –
হাত তুলেছি রাত ভুলেছি,
বাংলা জয় পেয়ে!

দামাল ছেলে করবে কামাল,
ষোলো কোটির চাওয়া –
বাংলা ওয়াশে হাসবে জাতি,
করুক যতোই ধাওয়া!

cricket world cup poem Bangla wash

এক এগারো লড়ছে মাঠে,
লড়ছে সাথে দেশ-
আনবে হেসে বীরের বেশে,
মুছবে যতো ক্লেশ!

সোনার ছেলে রুপোর ছেলে,
হীরের ছেলের দল-
আনবে বয়ে সবার হয়ে,
বাংলা ওয়াশের ঢল!!!!

জয়ো তাজ

Desher kobita cricket bangladesh
Joyo-taz-poem

বাংলা মায়ের দামাল ছেলে
কচি কচি মুখ-
খেলায় খেলায় ভরায় সুখে,
ষোল কোটি বুক।

ছক্কা চারে ব্যাটিং বলে,
আহা কিজে ছন্দ-
বিজয় কেতন উপচে তুলে,
ভুলায় যতো মন্দ।

বীর বাঙালী বীরের জাতি
যুদ্ধ আবার করছে-
এই এগারো ন’য় এগারো,
ষোল কোটি লড়ছে।

সাবাস সাবাস সোনার ছেলে
সালাম দোওয়া লও-
ভাসাও আবার বিজয় স্রোতে,
তোমরা একা নও।

cricket bangladesh best wishes poems joyo taz

বীর এগারো বাংলার বাঘ
বিশ্ব দেখে আজ-
বাংলা মায়ের দামাল ছেলে,
পরবে জয়ো তাজ।

গর্বিত তাই আমি!!

Desher kobita bangla kobita kobitay jagoron
Gorbito-tay-ami-poem

রুপ লাবনী রুপের রানী,
বাংলা মায়ের মুখ-
চোখ জুড়ানো মন মাতানো,
স্নিগ্ধ সবুজ সুখ!!

তড়তড়িয়ে ছোটে নদী,
শনশনিয়ে বাও-
টলটলানো জলে ভাসে,
মন পবনের নাও!!

শিশির ভেজা দুব্বা ঘাসে,
দূরের রবি হাসে-
পদ্মা জলে হংস মিথুন,
মনের সুখে ভাসে!!

সবুজ চাদর মায়ার আদোর,
রুপের কারুকাজ-
আলতা রাঙা নূপুর পায়ে,
বধুর মতো সাজ!!

বর্ন মালার এদেশ আমার,
সবার চেয়ে দামি-
এই মাটিতে জন্ম বলেই,
গর্বিত তাই আমি!!!

ইচ্ছে করে’না

short country poems Bangladesh
Icche-korena-poem

ইচ্ছে করে’না দূরের নীলে আর কখনো ভাসতে-
ইচ্ছে করে’না কষ্ট চেপে মুখের হাসি হাসতে-
ইচ্ছে করে’না কথা গুলো ধরে সুরের তারে সাধতে-
ইচ্ছেকরে’না মিছেমায়াডোরে তুমি-আমি’তে বাঁধতে-
ইচ্ছে করে’না আলো আঁধারের স্বপ্ন লয়ে বাঁচতে-
ইচ্ছে করে’না হীরা ভেবে চুমি জীর্ণ পথের কাচঁ’তে-
ইচ্ছে করে’না হেলিয়ে মাথা চোখ বুজেঁ কাঁধে রাখতে-
ইচ্ছে করে’না আলতা পায়ে শিশিরের জল মাখতে-
ইচ্ছে করে’না সব কিছু ফেলে ঊর্ধ্বে তুলি এক হাত’কে-
ইচ্ছে করে’না স্মৃতিতে অমর করে রাখি এক রাত’কে-

ইচ্ছে করে’না ছায়ার মায়ায় বিন্দু খুঁজে আঁকতে-
ইচ্ছে করে’না অহেতুক ঢুকি ধুম্রজালের ফাঁক’তে-
ইচ্ছে করে’না জুলুম সয়ে জালীম ভালোবাসতে-
ইচ্ছে করে’না সূর্য ফেলে অসীম কালোয় আসতে-
ইচ্ছে করে’না ঘড়ির কাঁটায় সময় গুনে ভাবতে-
ইচ্ছে করে’না মাশগুল হই দিনের রঙের খাব’তে-
ইচ্ছে করে’না মানচিত্রের এতটুকু ভাগ ছাড়তে-
ইচ্ছে করে’না বারবার দেখি স্বাধীনতাকে হারতে !!!!!

ডিসেম্বরের ষোল

independence day of bangladesh poem
December-Sholo-poem

স্বাধীনতার সূর্য হাসে,
বাংলা না’য়ের পালে-
ডিসেম্বরের ষোল মানে,
বিজয় সবুজ লালে ।
করলো বিদায় দালাল শকুন,
মুক্তি সেনার দল-
করলো স্বাধীন আচঁল মায়ের,
মুছলো চোখের জল ।

independence day of Bangladesh poem

লক্ষ ত্যাগের বিনিময়ে,
পেয়েছি বাংলা মা’কে-
বক্ষ ভেতর চিরদিনি,
বাচিঁয়ে রাখবো তাঁ’কে ।
আজ আমি তাই সব কিছুতে,
পাচ্ছি ছোঁয়া স্বাধীনতার –
দেশ মাটি মা মুক্তআকাশ,
বিজয় ষোল ডিসেম্বর ।।

উত্তাল মার্চ

Desher kobita Uttal March Poem
shadhinotar-Uttal-March-Poem

কৃষ্ণচূড়ার রক্তি লালে,
হাসছে দুঃখে স্বাধীন দেশ-
নামকাওয়াস্তে স্বাধীন বলি,
স্বাধীনতার নেইতো রেশ!

চলতে বলতে উঠতে বসতে,
সবখানেতেই বাঁধা–
নির্বাচনের প্রহসনে,
দেশটা গোলক ধাঁধা!

লক্ষ দানের আত্নহুতি,
কাঁদছে নীরব জলে–
কোথায় হলো দেশটা স্বাধীন,
স্বাধীনতা কাকে বলে!!

মৌলিক চাওয়ায় মরছে ধুঁকে,
আম জনতা রোজ–
চেয়ার গদির লোলুপ নেশায়,
কেউ রাখেনা খোঁজ!

উত্তাল মার্চ এসেছে আবার,
নতুন দ্বীপ্ত আশায়–
মানুষে মানুষে স্বাধীনতা পাবে,
স্বাধীনতা ভালোবাসায়!

লাল সবুজের গৌরব লয়ে, উত্তাল মার্চ বলে–
মুক্ত হবে দেশ-মাটি-মা,
মানুষ স্বাধীন হলে!!

Desher kobita Shahida Rahman Munney

Facebook Comments