Bangla Country poems by Idris Rahman

হাজার বছরের শেষ্ঠ বাঙ্গালি
ইদ্রিস রহমান

সবুজ শ্যামল ছোট্ট গাঁয়ে
শতবছর পূর্বে
জন্মেছিল বাংলার জনক
গর্বিত সেই গর্বে

বাবা মা ও পাড়ার লোকে
খোকা বলে ডাকে
হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি
বিশ্ব চেনে তাকে।

স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলার
কারো তাবেদার নয়
বজ্র কন্ঠে গর্জে উঠে
ছিনিয়ে আনে জয়।

এই বাংলা নদী নালা
যতদিন রবে বহমান
ততদিন তোমায় রাখিবে স্মরনে
শেখ মুজিবুর রহমান।

মুজিব মানে চেতনা সবার
মুজিব মানেই শক্তি
মুজিব মানে আত্ববিশ্বাস
পরাধীনতা থেকে মুক্তি।

জন্ম শতবর্ষে তুমি
আছো সবার অন্তরে
মহান প্রভু ভাল রাখুক
সদা তোমায় পরপারে ।

বাংলা আমার “মা”
ইদ্রিস রহমান।

জন্ম আমার সোনার বাংলায়
রূপসী এক গাঁয়ে
চারিদিকে কি অপরূপ আহা
নদী নালা গেছে বয়ে।

রক্ত পিপাসু হায়েনারা সেদিন
গ্রাম পুড়িয়ে করেছিল ছারখার
তাজা রক্তে ভিজেছিল মাটি
শিশুদের করুণ চিৎকার।

কত মায়ের কোল খালি করলো
ইজ্জত হারালো কত বোন
বাবা একদিন ডেকে বলে খোকা
মুক্তির গল্প শোন।

মুক্তি যুদ্ধ দেখিনি আমি
শুনেছি বাবার মুখে
ওরা নির্বিচারে গুলি চালিয়েছে
আমার ভাইয়ের বুকে।

অবশেষে রুখে দাঁড়াল
আবাল বৃদ্ধ বনিতা
মা বোনেরাও পাশে দাঁড়াল
এলো স্বপ্নের স্বাধীনতা।

বাবার মুখের সেই কথা আজ
বলি আমার খোকার কাছে
মুক্তিযোদ্ধারা কভু মরে না
কোটি হৃদয়ে বেঁচে আছে।

আটচল্লিশ বছর পরেও কি মোরা
পেয়েছি স্বাধীনতার সুখ?
এত অনাচার অবিচার দেখে
আৎকে ওঠে বুক।

তবুও বাংলাকে ভালবাসি
বাংলা আমার মা
সারা দুনিয়ার সাথে তার
হয় না তুলনা।

Bangla Country poems by Idris Rahman

খোকা
ইদ্রিস রহমান

বাইগা নদীর তীর ঘেষে
ছোট্ট একটি গ্রাম
সেই গ্রামের একটি ছেলে
মুজিব ছিল নাম।

আদর করে সবাই তারে
ডাকতো খোকা বলে
বাবা মায়ের আদরের ধন
পাড়ার দুষ্টু ছেলে।

ছোট থেকেই প্রতিবাদী
মুরব্বিরা কয়
কারো দুঃখ দেখলে তাহার
হৃদয়ে না সয়।

পুকুর থেকে মাছ আর
গোলা থেকে ধান
বাবা মায়ের অগচরে
করে দিত দান।

আপোষহীন এক মানুষ ছিলো
কণ্ঠে ছিলো মধু
সাত মার্চের ভাষণে সবে
দেখে ছিলো যাদু।

যার কাছে যা আছে নিয়ে
রাস্তায় নেমে পড়ো
হায়েনাদের বিনাশ করে
দেশটা স্বাধীন করো।

দল মত জাতি নির্বিশেষে
দিল সবে সাড়া
সেই মানুষটির হাতটি ধরে
স্বাধীন বাংলা গড়া।

৭৫ এর ১৫ আগস্ট
এলো কালো রাত
প্রানটি তাহার কেড়ে নিলো
হায়েনাদর হাত।

শোক সাগরে ভাসলো দেশ
জাতি হলো হত
বাংলা নামের সোনার দেশটা
হলো কলঙ্কিত

অভাগা জাতি
ইদ্রিস রহমান।

আমরা বাঙালী জাতি
হুজুগে বেশামাল
ইস্যু একটা পেলেই হলো
তিলকে করি তাল।

কাজের কাজি নয়তো কেহ
ব্যঙ্গতে বেশ পটু
দোষ গুন না দেখেও কিন্তুু
বলতে পারি কটু।

বানোয়াটে কম নই মোরা
প্রমান ভুরি ভুরি
কানে হাত না দিয়ে কেবল
চিলের পিছে ঘুরি।

সবাই যেন বীর পালোয়ান
করব হেন তেন
আসল যায়গায় গেলেই কেবল
পিছপা হটে যান।

কোন কিছুর গন্ধ পেলে
চাই মুনাফা অতি
দেশ ও দশের তোয়াক্কা নাই
হায় অভাগা জাতি।

করোনাকে নিয়েও কতেক
করে যাচ্ছে ব্যঙ্গ
উপহাসের মাস্ক বানিয়ে
করছে কত রঙ্গ।

Bangla Country poems by Idris Rahman

দিক হারা নাবিক
ইদ্রিস রহমান

দিক হারা নাবিক আমি
ছিড়ে গেছে পাল
দরিয়া উত্তাল তবু হাতে
ধরে আছি হাল।

অতল জলে ডুবি ভাসি
পাইনা কুলের দেখা
কোন দোষে দুষিব বলো
নিজের ভাগ্য রেখা।

চারিদিকে শুধু কুয়াশায় ঘেরা
দেখিনা আলোর ছটা
জীবন তরী থমকে গেছে
কেবল আঁধারের ঘনঘটা।

আশার প্রদীপ জ্বলে আর নেভে
পাইনা খুঁজে কুল
যোগ বিয়োগে মিলেনা হিসাব
কি ছিল জীবনের ভুল।

হয়তো সুদিন বেশি দুরে নয়
পাবোই কুলের সন্ধান
নতুন সু্র্য ঊদয় হবে
আধারকে করে ম্লান।

শীতের দিনে
ইদ্রিস রহমান

কুয়াশাচ্ছন্ন ভোর বেলাতে
ছুটছে গাছি হাড়ি সাথে
পাড়তে খেজুর রস
গিন্নি বলে রস এনে দাও
রাঁধি একটু পায়েস।

অগ্রহায়ণে নতুন ধানে
মৌ মৌ গন্ধে হৃদয় টানে
ভাপা, চিতই পিঠা
খেজুর রসে দুধের সাথে
আহা কি যে মিঠা।

শীতের দিনে বাড়ি বাড়ি
মা ঝিয়েরা ভাজে মুড়ি
পাটালি গুড় দিয়ে
রোদে বসে মুড়ি খেতাম
পুকুর ঘাটে গিয়ে।

কিশোর বেলায় নিশি রাতে
বন্ধুরা সব মিলে সাথে
ঘুমে যখন সবাই
চুরি করে খেজুর রসে
খেতাম পায়েস সেমাই।

বটতলাতে বসলে মেলা
দেখতে যেতাম যাত্রাপালা
দোকান সারি সারি
পুতুলের নাচ দেখে মুগ্ধ
কিশোর কিশোরী।

বেশি ঠান্ডা লাগলে পরে
খড় কুটো জড়ো করে
আগুন পোহাতাম
শুকনো কলাই পাজা ধরে
পুড়িয়ে খেতাম।

শীতের দিন লাগে ভালো
গায়ের রং হয় একটু কালো
তাতে কি যায় আসে
শাক সব্জি টাটকা মেলে
খেতে মজা বসে।

সকাল হলেই ঝিলে বিলে
অতিথি পাখি দলে দলে
দেখে নয়ন জুড়ায়
ডুব সাতারে সারা বেলা
মেতে থাকে খেলায়।

বৈশাখ এলে বাঙালিয়ানা
ইদ্রিস রহমান

বৈশাখ এলে বাঙালিয়ানা
সবটুকু দেখাও
একদিন পরেই কেন তোমরা
সবই ভুলে যাও

বৈশাখ এলেই পাড়ায় পাড়ায়
কত আয়োজন
সাজ প্রভাতে পান্তা ইলিশ
তৃপ্তিতে ভোজন।

সারা বছর পান্তা দেখলেই
নাক কেন শিটকাও
নিত্যদিনে টেবিলটাতে
কিসের পরসা সাজাও?

প্রতিদিনই চলছো তুমি
ভিন দেশিদের অনুকরনে
বাংলা মাসের তারিখটাও
রখো না মনে।

এই বাংলাতেই জন্ম মোদের
ভিন দেশি তো নই
এসো মোরা মনেপ্রাণে
খাঁটি বাঙালী হই।

নিজে স্বত্বা ভুলে কেন
পরেরটা কে ধরি
এই বাংলা মোদের মা
তাকে বুকে লালন করি।

Bangla Country poems by Idris Rahman

Facebook Comments