Aslam Prodhan song lyrics

হামাহেরে চ্যারমেন সাব (গান)
আসলাম প্রধান

হামাহেরে এলাকার
চ্যারমেন সাব
সগলারি সাথে তার
উঠবোস-ভাব ॥

ইলিপের মাল নিয়া
নাই খাই খাই
তার মোদে পাবাও না
ধানাই-পানাই ।
দ্যায়-ও না তাক ক্যাও
বাজে পোস্তাব-
এই হোলো হামাহেরে
চ্যারমেন সাব ।

কারো তাঁই চাচা হন
কারো নানা, ভাই
দরকারি কাম নিয়া
তার কাছে যাই
ঘুরায় না, প্যাঁচায় না
খোঁজেও না নাভ
এই হোলো হামাহেরে
চ্যারমেন সাব।

ক্যাও যদি তাক যায়া
জানায় নালিশ
পায় তাঁই ঠিকমতো
বিচার-শালিস ।
অন্যায় পালি দ্যায়
উচিত জবাব-
এই হোলো হামাহেরে
চ্যারমেন সাব ।

ভাবার্থ:

এমন একজন চেয়ারম্যান সাহেবের কথা বলা হচ্ছে, তিনি সমানদৃষ্টিতে সবার সঙ্গে, নিরহংকারে ওঠাবসা করেন। রিলিফের প্রতি তার কোনো লোভলালসা নেই । সৎ থাকার কারণে তাকে কেউ বাজে প্রস্তাব দেয়ার সাহস পায় না। এলাকার কেউ কোনো দরকারে তার কাছে গিয়ে হয়রানি-পেরেশানির স্বীকার হোন না। কেউ কোনো অভিযোগ নিয়ে গেলে তিনি ন্যায় বিচার করেন, অন্যায়ভাবে পক্ষপাতিত্ব করেন না। তিনি এলাকার সবার কাছে গ্রহণযোগ্য ভালো চেয়ারম্যান। ]

তোমার খোঁজে (আধ্যাত্নিক গান)
আসলাম প্রধান

খুঁজেছি পাতায় পাতায়
খুঁজিনি শিকড়ে-
তোমাকে পাবো কী করে ॥

নানা বন ফুলে ফুলে
ঘুরে মন ভুলে ভুলে
কত ডাল ভেঙেছি ধরে ॥…ঐ

দিবা পার মহাধুমে
রজনী ঘুমে ঘুমে
দেখিনি আঁধার বিচরে॥…ঐ

যে চির প্রতিবেশি
ভেবেছি সে বিদেশি
তাকে যে রেখেছি সরে॥…ঐ

লোকগীতি

জগতে ঘুরিফিরি
করি ভাই কুলিগিরি
এ কুলির নাই মজুরি,
নাই বিরতি, নাই—
কেনো যে বোকার মতো
শুধুই খেটে যাই ।।

শীত কিবা ঝড়বাদলে
বোঝা বই দুই বগলে
দরদে কেউ না বলে,
কখন আমি খাই–।। ঐ

দেখে সব কাছের লোকে
চলে যায় বকেঝকে !
তবু এ আহাম্মকে
ভারের ভেলা বাই–।। ঐ

বস্তিঘর
আসলাম প্রধান

অট্টালিকার পাশে তোর
বস্তিঘরটা বেমানান
জলদি করে দে ভেঙে, দে-
রাখতে ওদের মান-সম্মান—।।

থাকবে ওরা দালানকোঠায়
খাবে দক্ষিণের বাতাস
তোদের ঘরের বর্জ্যপচায়
বন্ধ হবে ওদের শ্বাস (২)
রোগজীবাণু সংক্রমণে
নষ্ট হবে ফুলবাগান—।।–ঐ

তোদের ছেলের সঙ্গ পেলে
নষ্ট হবে ওদের ছাও
একটু ছুঁতোয় মার খাবে রে
গরির-দুঃখী তোদের ছাও (২)
কথায় কথায় ধমক দেবে-
শাসনঝরা বাক্যবাণ—।।–ঐ

Aslam Prodhan song lyrics

মালিক (আধ্যাত্মিক গান )
আসলাম প্রধান

আড়াল করে রাখ তুমি
নিজের চেহারাকে
দৃষ্টিসীমার বাইরে তবু
ভাবতে ভালো লাগে ।।

থাকো অনেক কাছাকাছি
দেখো আমি কেমন আছি(২)
কষ্ট ছড়াও, প্রশান্তি দাও
রাগে, অনুরাগে—-।। ঐ

তুমি মহান, করুণাময়
মালিক, অধিপতি
তোমার হাতের মুঠোয় আছে
সবার পরিণতি ।
ভালোবেসে কাছে টানো
জানিয়ে দাও অভিমানও (২)
মাখলুকাতের প্রতি তোমার
ইচ্ছে যেমন জাগে —-।। ঐ

ছোট্ট ঘর (আধ্যাত্নিক গান )
আসলাম প্রধান

দেখা যায় ছোট্ট ঘর
কী আছে তার ভিতর?
মন আমার তালাশ কর, তালাশ কর ।।

সে-ঘরের বন্ধ দ্বার
বেরোবার সাধ্য কার?
পাহারায় গুপ্তচর, গুপ্তচর—।।-ঐ

যে গেছে সেই ঘরে
কে জানে কী-ই করে!
আসে না সেই খবর, সেই খবর—।।-ঐ

কত যুগ, কত্ত দিন
একাকী, সঙ্গীহীন
কাটাব আট প্রহর, আট প্রহর—।।-ঐ

অন্যপারের যাত্রী (আধ্যাত্নিক গান )
আসলাম প্রধান

যে ঘাট ছেড়ে এসেছি কাল-
সেই ঘাটে আর যাওয়া নাই
উজান ঠেলে যেতে হবে
পেছন ফিরে চাওয়া নাই ।।

এপাশ ওপাশ জলরাশি
পথের কোনো দিশা নাই
ঝড়বাদলে বেখেয়ালে
হারাই মনের নিশানাই—।। ঐ

অন্ধকারে মাঝসাগরে
বিন্দু আলোর শিখা নাই
ঘনঘন যাচ্ছি ভুলে
অন্যপারের ঠিকানাই—।।ঐ

গভীর জলে উলটোস্রোতে
তালবেতালে খেয়া বাই
যে করে হোক নৌকাখানি
অপর পারে নেয়া চাই—।। ঐ

পুঁথিগাঁওগেরামের গিরিঙ্গি
আসলাম প্রধান

লা-শরীক আল্লাহ কয়া ধচ্চি কলমকোনা
করমো হামি গাঁওগেরামের গিরিঙ্গি বর্ণনা ।।
শোনো গেরামবাসী(২) ঢাকাত আসি চলছো হাসি-খেলি,
জানো কি কেও গাঁও’ত ক্যাংকা আইল ন্যা ঠেলাঠেলি?
মামলা-মোকদ্দমা(২) জমিজমা ধ্বংস কচ্চে কেও,
ট্যাকার জন্যে অল্পপানিত দেকছো পুঁটির ড্যাও ?
মস্তান-ভণ্ডসাধু (২) কতাত জাদু, মিছা মামলাবাজ,
নষ্ট কচ্চে বাংলাদ্যাশের বর্তমান সমাজ ।।
দুক্কু নাগে ভাইরে (২) দেকপার পাইরে, গাঁও’ত যকন যাই,
মদ-গাঁজা-ভাং খায়া কারো গালোত চামড়া নাই ।।
চ্যাংড়াপ্যাংড়া যারা (২) ঘরছাড়ারা আইতে-ওছরে ঘোরে,
চান্দাবাজী কত্তিছে কেও আস্তার মোড়ে মোড়ে ।।
বাপ-মাও সর্বশান্ত (২) ওই উদ্ভ্রান্ত ছৈলপৈলগুলাক নিয়া-
মাদক বন্ধে কী করা যায়, দেকপার কই ভাবিয়া । ।
জ্ঞানী-গুণীজনে (২) সোগচরণে দিতিছোম সালাম-
ক্যাংকা করি আক্মো হামরা এলাকার সুনাম! !
ভদ্দরনোকের বাড়ি (২) মাইনসে তারি গপ্পোসপ্পো করে –
জানবার পায়না দুব্বলেরা ভূমিদস্যুর ডরে-
কোনঠে অস্থির আছে (২) গাঁওসমাজে নিরিহ-শান্তরা,
নাটির জোরে দেওয়ানগিরি কত্তিছে ভণ্ডরা!!
দমন করবি ক্যাডা (২) বাপের বেটা- বিবেকবানরা ছিল-
ভণ্ডগুলার অত্যাচারোত সগলে গাঁও ছাড়িল !!
একন শহরমুখী (২) নিছে ঝুঁকি গুণীসন্তানেরা!
চিন্তায় গাঁও’ত থাকপার চায়না ভালো মানুষেরা !!
পালাই পালাই করে (২) দৃরশহরে সুখের বাড়ি বান্দে,
গাঁও’ত একন গাছগাছালি পশুপাখি কান্দে! !
এংক্যা পরিস্থিতি (২) কী ভয়ভীতি গাঁও’ত গেলি দেকি-
মুখ্যসুখ্য মানুষটা মুই করোম ন্যাকানেকি-
এল্যা বিষয় নিয়া (২) যাম ভাবিয়া এই শহরোত থাকি
মোর মনোত কী কষ্ট তোমরা বুঝবার পাচ্চো নাকি!
বুঝলে চেষ্টা করো (২) নড়োচড়ো বন্ধু মহাশয়,
বন্ধ করো বন্ধ করো এল্যা অবক্ষয়!!
একন্যা আব্দার কইরা (২) যাচ্ছোম সইরা, নিতিছোম বিদায়-
ভালো থাইকো,সুখোত থাইকো বন্ধুরা সবায় ।।
পুঁথি ইতি হৈল ।

Aslam Prodhan song lyrics

Facebook Comments