ছবি আসে যায়

ঢেউয়ের শব্দ ভেসে আসছে।
নির্জনতায় একাকিত্ব ভালোবাসছে মনকে।
চাঁদ দিগন্ত ছাড়িয়ে উপরে।


একটু একটু করে হাওয়া
চলেছে ভাষা ভাষা হয়ে। নৌকাটি ভাষছে,
ঢেউয়ের দোলায় যাচ্ছে আসছে।
একটি পাখি উড়ে গেল। গভীর নীল চোখ।


তারপর পালকের মতো মেঘে
মিলিয়ে গেল।
তারাদের ওড়না জড়ানো রাতে এমনি করে
ছবি আসে আর যায়।

শারদীয়া

শরতের মেঘমালা মুক্ত আকাশে
শান্ত নদীটির শান্ত বাতাসে
চায় কার পানে?


কার পথপানে প্রতীক্ষা করে,
আগমনী বার্তায় নিজ প্রাণ ভরে,
নতুনের গানে।


সমস্ত জীবন ঘিরে
মন প্রাণ দীন করে,
আসি আসি বলে নাহি আসে,


প্রতীক্ষার হয় অন্ত,
আলোকিত দিক দিগন্ত
সবাইকে যেন ভালবাসে।

মা আসছে

একবার চোখ গেল শহর থেকে দূরে, যেখানে একটু নীরবতা ঘুমিয়ে জেগে থাকে।
মাটির রাস্তা ধ’রে ধানখেত দিয়ে ছেলেরা যায় নাইতে।
পায়ে লুটিয়ে প’ড়ছে কাশের ঝাড় ।
খানিকটা দূরে রেলগাড়ি কু ঝিকঝিক করে ধোঁয়া উড়িয়ে যায়।


একচিলতে রোদ গাছের ফাঁকে উঁকি মারছে।
কলসী নিয়ে ঘোমটা টেনে বৌ রাঙা পায়ে ঘাটের দিকে।
রামধনুর মতো মেঘে ফুটে ওঠে মায়ের মুখ।
করুনায় ভরা অবকাশে
দিন ব’য়ে যায় শান্ত জলের ধারার সাথে।


হিল্লোল জেগে ওঠে হাওয়ায়।
শিউলি ফুলের গন্ধে অতিথি আসার খবর পৌছে যায়।
দিকে দিকে ফুটে ওঠে
তার আলোকছটা।

Facebook Comments